1. eliusmorol@gmail.com : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ
  2. rahadbd300@gmail.com : rahad :
শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৪:৫৫ পূর্বাহ্ন

📡চলতি বছরে যে প্রযুক্তিগুলো মানুষকে চমকে দেবে📡

☞সার্বিক সম্পাদনায়ঃ মোড়ল মোঃ ইলিয়াস হুসাইন
  • আপডেট সময়ঃ শনিবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৫৭০ বার সংবাদটি দেখা হয়েছে।

📡চলতি বছরে যে প্রযুক্তিগুলো মানুষ কে চমকে দেবে📡

✪লিখেছেনঃ মোজাহেদুল ইসলাম ঢেউ-ঢাকা থেকে

এবার বছর ঘোরার পালা। বিশেষজ্ঞ মহলের মতে, আসছে বছরে বিশ্বের নানান পর্যায়ের মানুষের জন্য অপেক্ষায় রয়েছে একাধিক চমক। আর তার অধিকাংশেরই প্রাথমিক স্তরের কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে ২০১৯ সাল থেকেই। একনজরে দেখে নেওয়া যাক, সেই তালিকায় কী কী রয়েছে।

রোবোটিক মুন বেস তৈরি করতে চলেছে জাপানঃ

২০২০ সালের মধ্যেই রোবোটিক লুনার আউটপোস্ট তৈরি করে ফেলবে জাপান। আর যা তৈরিও হবে রোবোটদের দ্বারা এবং তাদের জন্যই গড়ে উঠছে এই আউটপোস্ট। যেখানে এই মহত্কার্য হচ্ছে সেই ‘দ্য ইনস্টিটিউট ফর দ্য ফিউচার’ থেকে মাইক লিবহোল্ড বলছেন, ‘প্রাইভেট লঞ্চ ভেহিকেলস রয়েছে যারা এই ধরনের কাজ করতে সক্ষম। আর রোবোটদের জন্য এই আউটপোস্ট তৈরির কাজ আমরা অনেকটাই এগিয়ে ফেলেছি।’

রেলপথে একত্রিত হচ্ছে বেজিং-লন্ডনঃ

হাইস্পিড রেললাইন দিয়ে পূর্ব এবং পশ্চিম প্রান্ত জুড়তে চাইছে চিন। যদি মনে করেন চিনের পূর্ব এবং পশ্চিম তাহলে ভুল করবেন! আসলে বিশ্বের পূর্ব এবং পশ্চিম প্রান্ত হাইস্পিড রেল দিয়ে জুড়তে চাইছে চিন। সূত্রমতে, মোট ১৭টি দেশকে রেলপথে জোড়ার সমস্ত প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে জিনপিংয়ের দেশ। প্রাথমিক পর্যায়ে তাদের চিন্তাভাবনা এশিয়ান—ইউরোপিয়ান করিডর তৈরি করা। নানান দেশকে রেলপথে জুড়তে কাঁচামাল সরবরাহ করবে চিনই।

নিজেই নিজে ড্রাইভ করবে গাড়িঃ

গুগল থেকে শুরু করে ডারপা এবং নানান গাড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থার বহু দিনের স্বপ্ন এবার বাস্তবে রূপ নেওয়ার পালা। তৈরি প্রায় সবই। পরীক্ষামূলকভাবে সেল্ফ ড্রাইভ কার চলেছে বাজারে। মাস্টারব্লাস্টার সচীন টেন্ডুলকারকেও সেই গাড়িতে দেখা গিয়েছিল। তবে ওয়্যারলেস ইনফ্রাস্ট্রাকচর, গ্লোবালি স্পিকিং এইসব বিষয়গুলো গাড়িতে সংযুক্তিকরণ করা গেলেই ২০২০ সাল থেকেই পথে-ঘাটে চলতে শুরু করবে সেল্ফ ড্রাইভিং কার।

জীবাশ্ম জ্বালানিকে টেক্কা দেবে জৈব জ্বালানিঃ

২০২০ সালের মধ্যেই নবীকরণযোগ্য রিসোর্সের মধ্যে থেকেই শক্তির অধিকাংশ পেতে চলেছে ইউএস মিলিটারি। অন্যদিকে সে দেশের নৌসেনারা মনে করছেন যে, তারাও আসছে বছরের মধ্যেই ৫০ শতাংশ জৈব জ্বালানি পেতে সক্ষম হবে। আর এরই কারণে মনে করা হচ্ছে যে, জৈব জ্বালানির দাম সামনের বছর থেকেই হুহু করে বাড়তে শুরু করবে।

আকাশে উড়বে গাড়ি?

উড়ন্ত গাড়ির পুনর্জন্ম? ইনস্টিটিউট ফর দ্য ফিউচারের তরফে বলা হচ্ছে যে,‘এইভাবে এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল করা সত্যিই অভাবনীয়।’ আরো বলা হয়েছে যে,‘অর্থ এবং টেকনোলজির দিক থেকে আমরা একটু পিছিয়ে আছি। সেই দিকগুলো ঠিক হয়ে গেলেই আমরা এই ধরনের বিশেষ গাড়ি চালাতে সক্ষম হব।’

প্রত্যেক স্ক্রিন হবে আলট্রা থিন ওএলইডিঃ

খুবই দ্রুত ডিসপ্লে টেকের উন্নতিসাধন হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, ২০২০ সালের মধ্যেই এলসিডি মনিটর স্ক্রিন এতটাই চমকপ্রদ হতে চলেছে যে, তা এবার পেপার থিন ও এলইডি সারফেসের রূপ নিতে চলেছে।

কমার্শিয়াল স্পেসে চাঁদেও যাওয়া যাবেঃ

চমক দেওয়ার মতো জিনিস আবিস্কৃত হতে চলেছে স্পেস জগতে। মনে করা হচ্ছে—২০২০ সালের মধ্যেই চাঁদে কমার্শিয়াল ট্রিপ শুরু হতে চলেছে। জোরকদমে বিষয়টি নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষাও চলছে।

এয়ার গ্লাসের যুগে প্রবেশঃ

স্মার্টফোনে এতদিন ঠিকঠাক ছিল। কিন্তু মানুষ চাইছিলেন এক্কেবারে হাতের মুঠোয়। সেই জিপিএস সমেত এয়ার গ্লাস-ই ২০২০ সালের মধ্যেই মানুষ পেয়ে যাবেন। আর তার সঙ্গে থাকবে spatial web এবং geolocation data।

সিন্থেটিক ব্রেন তৈরি করবে বিজ্ঞানীরাঃ

২০২০ সালের মধ্যেই সিন্থেটিক ব্রেন তৈরি করতে সক্ষম হবেন বিজ্ঞানীরা। কম্পিউটারে যদি মানব ব্রেনের সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়, তাহলে স্ক্র্যাচ থেকে কেন মানব ব্রেন তৈরি সম্ভব নয়? এই নিয়ে ইতোমধ্যে গভীর বিশ্লেষণে মেতে ছিলেন বিজ্ঞানীরা। সুইজারল্যান্ডের ব্লু ব্রেন প্রজেক্টের গবেষকরা দীর্ঘদিন ধরে এই নিয়ে রিসার্চ করে যাচ্ছেন। তাদের মতে, ২০২০ সাল থেকেই এই কাজ হয়তো তারা করে দেখিয়ে দেবেন।

☞সংবাদ টি শোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ⬇️

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

☞এ জাতীয় আরও সংবাদঃ