1. eliusmorol@gmail.com : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ
  2. rahadbd300@gmail.com : rahad :
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৪৫ অপরাহ্ন

☞সিলেটে ‘হরিষে বিষাদ’ হবে না তো?

মো: ইলিয়াস হোসেন
  • সর্বশেষ আপডেট: শুক্রবার, ৬ মার্চ, ২০২০
  • ৫৩৭ বার সংবাদ টি দেখা হয়েছে

☞সিলেটে ‘হরিষে বিষাদ’ হবে না তো?

।।দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ স্পোর্টস ডেস্ক।।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার বিদায়ী ম্যাচ। লাক্কাতুরা চা বাগানের সৌন্দর্যঘেরা আর বৃটিশ স্থাপত্যশৈলির অনুপম মিশেলে তৈরি সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ক্রিকেট অনুরাগীর ঢল। গ্যালারি, গ্র্যান্ডস্ট্যান্ড, পশ্চিম উত্তর কোণের টিলাসহ মাঠের প্রায় প্রতি ইঞ্চি জায়গা ভরে গেছে।

‘বাংলাদেশ বাংলাদেশ’ আর ‘মাশরাফি’ ধ্বনিতে গ্যালারি সরব। এদিকে নজর কাড়া স্ট্রোক প্লে, বাহারি মার আর চার ও ছক্কার ফুলঝুরিতে মাঠ গরম করে রেখেছেন লিটন দাস আর তামিম ইকবাল।
লিটন সেঞ্চুরি করে ফেলেছেন। আর তামিমও শতরানের সম্ভাবনা জাগিয়ে বসেছেন। বাংলাদেশের ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসের সফলতম ও সেরা অধিনায়কের বিদায়ী ম্যাচে নতুন রেকর্ড। ওয়ানডেতে এক সাথে দুই ওপেনারের সেঞ্চুরি আগে কখনই দেখেনি বাংলাদেশের ক্রিকেট। এবার কি সেটা হবে?
একটি রেকর্ড তো ইতিমধ্যেই হয়ে গেছে। উদ্বোধনী জুটিতে শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুৎ আর মেহরাব হোসেন অপির করা ১৭০ রানের রেকর্ড ভাঙলো ২১ বছর পর। ঐ দুই সাবেক ওপেনার ১৯৯৮ সালে রাজধানীর ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম উইকেটে রেকর্ড পার্টনারশিপ গড়েছিলেন। শুধু উদ্বোধনী জুটিতে নতুন রেকর্ড গড়াই নয়, মেহরাব হোসেন অপি সে ম্যাচে সেঞ্চুুরিও (১১৬ বলে ১০১) করেছিলেন।

বলার অপেক্ষা রাখে না, সেটাই ছিল ওয়ানডেতে বাংলাদেশের কোন ব্যাটসম্যানের প্রথম শতক। আজ (শুক্রবার) প্রায় দুই যুগ পর অপি ও বিদ্যুতের সেই রেকর্ড ভাঙলেন তামিম ইকবাল ও লিটন দাস। কিন্তু হায়! এমন দিনে হঠাৎ ‘হরিষে বিষাদ।’

আকাশ কালো করে শুরু বৃষ্টির উপদ্রব, বাংলাদেশের ইনিংসের ৩৩.২ ওভারে (স্কোর তখন বিনা উইকেটে ১৮২; লিটন দাস ১০২, তামিম ৭৯)।
খুব জোরে বা মুষলধারে নয়। ইলশে গুঁড়ি বা টিপ টিপ বৃষ্টি।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে অবশ্য বিকেলে ৫ টা নাগাদ হালকা বৃষ্টির কথা বলা ছিল। এদিকে ফ্লাডলাইটও নিভে গেল। ঘড়ির কাটায় তখন ৪ টা ১১ মিনিট।

যেহেতু দিবারাত্রির ম্যাচ। তাই আলোর ঘাটতির প্রশ্নই আসে না। তবে বৃষ্টি বন্ধ হতে হবে আগে। বৃষ্টি থামলে অবশ্যই খেলা হবে আবারো। তবে কখন থামবে? কতক্ষণ খেলা বন্ধ থাকবে? তার ওপর নির্ভর করছে ম্যাচের ভাগ্য, কত ওভার কর্তিত হবে সেই হিসেব।
এমন দিনে ম্যাচের এ অবস্থায় বৃষ্টির হানা! ক্রিকেট অনুরাগীরা কায়মনে সৃষ্টিকর্তার আনুকূল্য চাচ্ছেন। বৃষ্টি বন্ধ হওয়া দরকার। কেননা খেলা আবার শুরু হলে তামিমও যদি সেঞ্চুরি করেন, তাহলে একটি বড় রেকর্ড লেখা হবে বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে।
এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মেহরাব হোসেন অপি প্রথম বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে সেঞ্চুুরি করেছিলেন। আজ ২১ বছর দুই ওপনারের সামনিই শতরানের হাতছানি। বৃষ্টিতে ম্যাচ ধুয়ে মুছে গেলে কিন্তু এই ঐতিহাসিক রেকর্ডটি আর হয়ে উঠবে না।

স্যোসিয়াল মিডিয়াতে শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর...