1. eliusmorol@gmail.com : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ
  2. rahadbd300@gmail.com : rahad :
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১২:০৩ অপরাহ্ন

।।সিরাজগঞ্জে জেমস্ বাহিনী কোপালেন আওয়ামীলীগ নেতাকে।।

মো: ইলিয়াস হোসেন
  • সর্বশেষ আপডেট: বুধবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৩০৭ বার সংবাদ টি দেখা হয়েছে

।।এইচ এম আলমগীর কবির⇨ সিরাজগঞ্জ।।

৫ম ধাপে ইউপি নির্বাচনী পরবর্তী সহিংসতায় জেমস্ বাহিনী কোপালেন সিরাজগঞ্জে তাড়াশে উপজেলার ৩নং সগুনা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এফ কবির চৌধুরীকে।

আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ২৫০ শর্য্যা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। গত মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারী) সন্ধার দিকে ইউনিয়নের ধামইচ হাট মসজিদের ওযুখানায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহত এফ কবির চৌধুরী সগুড়া ইউনিয়নের চর কুশাবাড়ী গ্রামের মৃত আব্দুল কাদের চৌধুরীর ছেলে ও ৩নং সগুড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি। স্থানীয়রা জানায়, আওয়ামী লীগ থেকে নৌকার প্রার্থী নজরুল ইসলাম চৌধুরী বিদ্রোহী প্রার্থী জুলফিকার আলী ভুট্টুর সাথে পরাজিত হয়। সেই সুত্রধরে ঐ দিন মাগরিব নামাজের ওযু করার সময় তার ছোট ভাই এফ কবির চৌধুরীকে অতর্কিত ভাবে জেমস্ বাহিনী হামলা করে। এতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার মাথায় ৫টি সেলাই ও পায়ে ৪টি সেলাই দেওয়া হয়েছে। এতে এলাকাজুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, নির্বাচিত প্রার্থীর সমর্থক জেমস বাহিনীর সদস্যরা আমার ছোট ভাইকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। এই ১৫ সদস্য বিশিষ্ট বাহিনীর হুমকি-ধামকি ও হামলায় আমার নির্বাচনী প্রচার-প্রচারনায় ব্যাঘাত ঘটেছিলো। এই বাহিনীর অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। তিনি আরও বলেন, জেমস্ বাহিনীর প্রধান মোনায়েম হোসেন জেমস্, সদস্য রোকন ফারুকী, শাওন, ফয়সাল আহম্মেদ রানা, আহম্মেদ ইমতিয়াজ, মমিন প্রামানিক, মিরন, তোফাজ্জল, রান্টুসহ আরও বেশ কয়েকজন আমার ছোট ভাইয়ের উপরে হামলা চালিয়েছে। এরা একটি ক্লাব বানিয়ে চাঁদা বাজী থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। এই বাহিনীর হাত থেকে আমি ও আমার পরিবারসহ এলাকাবাসীদের রক্ষার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি। এঘটনায় তাড়াশ থানায় মামলা করবে বলে তিনি জানান। জেমস্ বাহিনীর প্রধান মোনায়েম হোসেন জেমস্ সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নির্বাচনে আমি বিদ্রোহী প্রার্থীর কাজ করায় আমাকে ফাসানোর চেস্টা করা হচ্ছে। সিরাজগঞ্জ ২৫০ শর্য্যা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শামীমুল ইসলাম জানান, গুরুতর আহত অবস্থায় এফ কবির চৌধুরীকে রাত ৯দিকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। তার মাথা ও পায়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। বর্তমানে সে হাসপাতালের পেইন বেডে চিকিৎসাধীন। তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফজলে আশিক বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনায় কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপুর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। জেমস্ বাহিনীর বিষয়ে তিনি আরও বলেন, জেমস্ নামে এক ব্যক্তিকে আমি চিনি। সেটাও তদন্ত করে দেখা হবে।

স্যোসিয়াল মিডিয়াতে শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর...