1. eliusmorol@gmail.com : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ
  2. rahadbd300@gmail.com : rahad :
বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০১:০৪ পূর্বাহ্ন

।।সাভারে দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে সাজানো চাঁদাবাজী ও হত্যাচেষ্টা মামলা-পর্ব ১।।

মো: ইলিয়াস হোসেন
  • সর্বশেষ আপডেট: মঙ্গলবার, ১৭ মার্চ, ২০২০
  • ৫৩২ বার সংবাদ টি দেখা হয়েছে

।।সাভারে দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে

সাজানো চাঁদাবাজী ও হত্যাচেষ্টা মামলা-পর্ব ১।।

।।দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগঃঃনিজস্ব প্রতিনিধি।।

সাভারে দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে সাজানো চাঁদাবাজী ও হত্যাচেষ্টা মামলায় দোকান্দারকে ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে। গত রোববার সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার-এ প্রকাশিত “সাভারে মিথ্যা মামলায় তুফানের জামিন”-শিরোনামে প্রকাশিত অনুসন্ধানী প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সাভার মডেল থানা পুলিশকে ভুল এবং বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে সাজানো চাঁদাবাজী ও হামলার মিথ্যা মামলায় নিরীহ মুদি দোকানদারকে ফাঁসিয়ে কারাগারে প্রেরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। মিথ্যা মামলায় অভিযুক্ত ভূক্তভোগী মুদি দোকানদারের নাম মোঃ আবুল হোসেন তুফান (৪১)। সাভার মডেল থানার বিরুলিয়া ইউনিয়নের শ্যামপুর এলাকার গোলাপগ্রামের কুমারখোদা লিজি সোসাইটিতে স্বপরিবারে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছিলেন তিনি। পাশাপাশি মুদি দোকানের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করেন।

প্রকাশিত প্রতিবেদনে আরও জানা যায়, গত ৯ মার্চ বিকেলের দিকে সাদা পোষাকধারী পাঁচ জন এসে তার মুদি দোকানেই হাতকড়া লাগিয়ে টেনে-হিঁচড়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিকিউরিটি গার্ড মিরাজ তাদের পরিচয় জানতে চাইলে সাদা পোষাকধারীরা নিজেদেরকে সাভার মডেল থানার পুলিশ সদস্য বলে জানান। হাতকড়া পড়ানোর কারণ জানতে চাইলে সাদা পোষাকধারীরা কোন কারণ কিংবা গ্রেফতারী পরোয়ানা দেখাতে পারেননি। এসময়, স্থানীয়দের তোপের মুখে পড়ে হাতকড়া খুলে দিতে তারা বাধ্য হন। আবুল হোসেন তুফানের ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডি-তে দেখা যায়, স্থানীয়দের তোপের মুখে পড়ে একজন-কে কথা বলতে। সাদা পোষাকধারী সেই একজনের পরিচয় নিশ্চিত হয়েছে আমাদের সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার-এর অনুসন্ধানী দল। তার নাম অপূর্ব দত্ত। তিনি সাভার মডেল থানার এস আই। বিপি নং-৮৬১৪১৭১৫৬৭।

কিন্তু, পরদিন ১০ মার্চ মুদি দোকানদার তুফান-কে ১৪৩, ৪৪৭, ৩২৩, ৩২৫, ৩০৭, ৩৮৫, ৩৮৬ এবং ৫০৬ ধারায় পেনাল কোডে হারুন অর রশিদ (৪০) নামে একজনকে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি দেখিয়ে তার বন্ধু কুতুব হিলালী (৩৫)-কে থানায় পাঠিয়ে মেডিকেল সার্টিফিকেট ছাড়াই সাভার মডেল থানা পুলিশকে বিভ্রান্তিমূলক, ভুল এবং মিথ্যা তথ্য প্রদান করে ভিত্তিহীন, বানোয়াট এবং ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে হয়রানী করতে মামলা দায়ের করে আদালতে পাঠায়। ১১ মার্চ জামিনে এসে দূর্নীতি সমাচার-কে এভাবেই বর্ণনা দিয়েছেন ভূক্তভোগী আবুল হোসেন তুফান।

এর আগে, গত ৯ মার্চ সন্ধ্যায় দূর্নীতি সমাচার-এর পক্ষ থেকে এস আই অপূর্ব দত্তের কাছে আটকের কারণ জানতে চাইলে আনুষ্ঠানিক ভাবে তিনি কোন কথা বলতে রাজী হয়নি বলে জানা গেছে। তবে, ভূমি সংস্কার বোর্ড, কোর্ট অব ওয়ার্ডস নওয়াব ঢাকা এস্টেটের-উপসচিব মোহাম্মদ হোসেন স্বাক্ষরিত ছায়ালিপি-তে দেখা যায়, ঢাকা জেলার সাভার থানার কোর্ট অব ওয়ার্ডস ঢাকা নওয়াব এস্টেটের মালিকানাধীন কুমারখোদা মৌজার সি.এস খতিয়ান নং ২, সি.এস দাগ নং ১৬, হাল খতিয়ান নং-৩, হাল দাগ নং- ৭২, ৭৪, ৭৫, ৭৬, ৭৭, ৭৮ ও ৭৯ মোট জমির পরিমান ২.৫৭২৪ একর এর কাতে ২.২০ একর একসনা লীজকৃত জমির বৈধ লীজি মালিক মোঃ মাহবুবার রহমান। মোঃ মাহবুবার রহমানের এসব লীজি ভূমিতে ৯ মার্চ নির্মাণ শ্রমিকরা কাজ করছিলেন। হঠাৎ করেই হারুন অর রশিদ নামের উপরোক্ত মামলার বাদী গিয়ে অন্যায় ভাবে কাজ বন্ধ করতে বললে লেবারদের সাথে কথা কাটাকাটি হয় এবং এই ঘটনাটি নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকা সিকিউরিটি গার্ড মিরাজ মুঠোফোনে ধারণ করার প্রস্তুতি নিলে হারুন অর রশিদ ধমক মেরে ভিডিও করতে নিষেধ করে দ্রুত সটকে পড়েন।

(চলব)

সৌজন্যেঃ সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার

স্যোসিয়াল মিডিয়াতে শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর...