1. eliusmorol@gmail.com : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ
  2. rahadbd300@gmail.com : rahad :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৭:৩৩ অপরাহ্ন

।।সাভারে দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে সাজানো চাঁদাবাজি ও হত্যা চেষ্টা মামলা-পর্ব ৩।।

মো: ইলিয়াস হোসেন
  • সর্বশেষ আপডেট: মঙ্গলবার, ১৭ মার্চ, ২০২০
  • ৫০৩ বার সংবাদ টি দেখা হয়েছে

।।সাভারে দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে সাজানো চাঁদাবাজি ও হত্যা চেষ্টা মামলা-পর্ব ৩।।

।।দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগঃঃ নিজস্ব প্রতিনিধি।।

মামলার বাদী হারুন অর রশিদ হামলায় কতোটা আহত হয়েছেন চলুন এবার কথা বলা যাক-

দায়িত্বরত চিকিৎসকের সাথে। সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক মাসুদ সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার-কে জানান, এটা একটা সিম্পল ইনজুরি। ডাক্তারদের ভাষায় এটাকে বলে আব্রুয়েশন। পায়ে ও ঘাড়ে একটু ছাল উঠেছে। ব্যাথার ঔষধ দেয়া হয়েছে। তেমন কিছু না। রামদা কিংবা গুরুত্বর কোন হামলার আঘাত কিনা বা সেলায়ের প্রয়োজন হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে চিকিৎসক বলেন, আগেই বলেছি এটা সিম্পল ইনজুরি। না না, কোন সেলাই লাগেনি! এখন উনিতো (হারুন অর রশিদ) বলছেন তাকে কি সব দিয়ে. . . . . আঘাত করেছেন! আসলে কি দিয়ে আঘাত করেছেন তাতো আমরা বলতে পারবো না। চিকিৎকের এই কথার পরে আর কি বাকি থাকে! যেখানে সিম্পল ইনজুরি সেখানে ৮-১০ টা সেলাই দেয়ার কথা কিভাবে জানালেন তারা! আমাদের সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার-এর অনুসন্ধানী দল হামলায় আহত হারুন অর রশিদের শরীরেও কোন সেলাই দেখতে পায়নি বলে প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়েছে।

শুধু তাই নয়, হামলায় আহত হারুন অর রশিদ তার দেওয়া সাক্ষাৎকারে তুফান, সোলেমান এবং সিকিউরিটি ইমরানের নাম বলেছেন। কিন্তু, তার বন্ধু কুতুব হিলালী থানায় যাবার পরে উক্ত ৩ জনের নামের বাইরে মামলায় আরও বেশ কয়েকজনের নাম দেখা গেছে। অভিযুক্তদের সাথেও যোগাযোগ করে দূর্নীতি সমাচার-এর অনুসন্ধানী টিম। এ মামলার অন্যান্য আসামীরা জানান, তাদেরকেও এ মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। তারা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সুষ্ঠ তদন্তের আহ্বান জানান।

গোলাপগ্রাম লিজি সোসাইটির সিকিউরিটি গার্ড মিরাজ সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার-কে জানান, আমি এখানে চাকুরী করতে এসেছি। আমি একজন নিরাপত্তাকর্মী। নিরাপত্তা দেওয়া আমার দায়িত্ব। নিরাপত্তার স্বার্থে সেদিন ঘটনার ভিডিও করতে গিয়েছি বলেই তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

কোন স্বজনপ্রীতি কিংবা কোন দূর্নীতির মাধ্যমে অথবা অন্য কোন উপায়ে লাভবান হয়েই এধরণের মিথ্যা, বানোয়াট এবং ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে মামলা দায়ের হয়ে থাকে বলে জানান অপরাধবিজ্ঞানীরা। যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে এরকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটার আগেই উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করে নাগরিকদের সুরক্ষা নিশ্চিতকরণ এবং মিথ্যা তথ্য সরবরাহকারীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন এমনটিই প্রত্যাশা সকলের।
এদিকে, মিথ্যা মামলায় জামিনে সদ্যমুক্তিপ্রাপ্ত আবুল হোসেন তুফান আপন গন্তব্যে ফিরে আসলে এলাকাবাসী তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এসময় তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার-কে বলেন, সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা। কিন্তু, কিছু কিছু হলুদ সাংবাদিক সঠিক ও প্রকৃত ঘটনা আড়াল করে মিথ্যা, ভিত্তিহীন সংবাদ পরিবেশন করে একটি কুচক্রী মহল ফায়দা লুটতে চায়। এসব মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনের বিরুদ্ধেও তিনি আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান।

এবিষয়ে জানতে সাভার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ এফ এম সায়েদ-এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার-কে বলেন, কেউ একজন হামলায় আহত হবার কথা তিনি শুনেছেন। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি দূর্নীতি সমাচার-কে জানান।

(চলবে)

☞সৌজন্যেঃ সাপ্তাহিক দূর্নীতি সমাচার।

স্যোসিয়াল মিডিয়াতে শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর...