1. eliusmorol@gmail.com : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ : দিঘলিয়া ওয়েব ব্লগ
  2. rahadbd300@gmail.com : rahad :
রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন

।।কেডিএতে জনপ্রতিনিধি চেয়ারম্যান নিয়োগসহ ১৩ দফা দাবিতে ২ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা।।

মো: ইলিয়াস হোসেন
  • সর্বশেষ আপডেট: রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৪৯৭ বার সংবাদ টি দেখা হয়েছে

।।কেডিএতে জনপ্রতিনিধি চেয়ারম্যান নিয়োগসহ ১৩ দফা দাবিতে ২ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা
০৮ ডিসেম্বর ২০১৯ ০৪ঃ০০ পিএম।।

খুলনার উন্নয়নে ১৩ দফা দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার : কেডিএতে জনপ্রতিনিধি চেয়ারম্যান নিয়োগ, খুলনা-ঢাকা রুটে বিরতিহীন ট্রেন সার্ভিস চালুসহ ১৩ দফা দাবিতে ২ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি। গত বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় খুলনা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আগামী ৮ ডিসেম্বর পিকচার প্যালেস মোড়ে ও ১১ ডিসেম্বর রেল স্টেশনে মানববন্ধন।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, খুলনার অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য ১৯৬১ সালে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কেডিএ) গঠিত হয়। কিন্তু যে উদ্দেশ্য নিয়ে এ সংস্থাটি গঠিত হয়েছিল সে উদ্দেশ্য কখনোই পরিপূর্ণতা পায়নি। প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক বিভিন্ন প্রকল্প অনুমোদন ও অর্থায়ন করা সত্ত্বেও বিগত ১০-১৫ বছরে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ একটি প্রকল্পও সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে পারেনি। যে সমস্ত প্রকল্প কেডিএ বাস্তবায়ন করেছে, তা’ নাগরিকদের পূর্ণ চাহিদা অনুযায়ী নয়। খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের জনবল অবকাঠামোসহ সকল সুযোগ-সুবিধা বিদ্যমান থাকা সত্ত্বেও অভিজ্ঞতা, দুরদর্শিতা ও আন্তরিকতার অভাবে খুলনার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পগুলো প্রণয়ন, উপস্থাপন এবং অর্থায়নে সফলতা দেখাতে ব্যর্থ হয়েছে। একই সাথে বাংলাদেশের এই উন্নয়নের দশকে খুলনা বিভাগীয় শহরকে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ উন্নয়নের ছোঁয়া দিতে ব্যর্থ হয়েছে।
লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান যিনি নিয়োগপ্রাপ্ত হন তার মেয়াদকাল স্বল্প হওয়ায় এবং খুলনার গণমানুষের অভাব-অভিযোগ, চাহিদা সম্পর্কে তার ধারণা না থাকায় বিভিন্ন ধরনের প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে হয়। এক্ষেত্রে নগরীর অবকাঠামো ও সার্বিক উন্নয়নের জন্য এ অঞ্চলের স্থানীয় প্রতিনিধিদের মধ্য থেকে চেয়ারম্যান নিয়োগপ্রাপ্ত হলে তারা এ অঞ্চলের সুবিধা-অসুবিধা, প্রতিবন্ধকতা সমন্বয় করে উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করতে পারবে। এজন্য বৃহত্তর খুলনার পক্ষ থেকে আমরা অবিলম্বে এই এলাকার স্থানীয় প্রতিনিধিদের মধ্য থেকে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান নিয়োগের দাবি জানাচ্ছি। ইতিপূর্বে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের যে সমস্ত প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে কিন্তু বাস্তবায়িত হয়নি সে সমস্ত প্রকল্পগুলো দ্রুত সম্পন্ন করার লক্ষ্যে পূর্ত মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মাষ্টার প্লান অনুযায়ী খুলনার গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য দ্রুত প্রকল্প গ্রহণ, অনুমোদন ও অর্থায়নের জোর দাবি জানাচ্ছি। ইতিমধ্যে প্রণীত প্রকল্পসমূহ যা’ মন্ত্রণালয় ও একনেকে উপস্থাপনের অপেক্ষায় আছে দ্রুত অনুমোদন ও বাস্তবায়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সকল অনিয়ম দূর করে দুর্নীতিমুক্ত খুলনার উন্নয়নবান্ধব কর্মচাঞ্চল্য খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠন করতে হবে।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে খানজাহান আলী বিমানবন্দর দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে। পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের ভিত্তিতে এ বিমানবন্দর নির্মাণ দীর্ঘসূত্রতা ও অনিশ্চয়তার মধ্যে পতিত হবে, যা’ খুলনাবাসীর কাম্য নয়। খুলনাসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, শিল্পায়ন ও জ্বালানী বান্ধব শিল্প স্থাপনে অবিলম্বে বিদ্যমান পাইপ লাইনে গ্যাস সরবরাহ, ভোলার দ্বিতীয় কূপ থেকে খুলনায় গ্যাস সরবরাহ করার জন্য পাইপ লাইন স্থাপন করতে হবে।

খুলনা-যশোর মহাসড়ক ৬ লেনে উন্নীত, শের-এ-বাংলা রোড ৪ লেনে উন্নীতকরণ, রূপসা সেতু থেকে রূপসা ঘাট পর্যন্ত সড়ক ৪ লেন এবং ২০১৮ সালে অনুমোদিত থ্রি-লিংক রোডের নির্মাণ কাজ দ্রুত শুরু করতে হবে। খুলনায় আধুনিক রেল স্টেশনে ত্রুটিপূর্ণ প্লাটফর্ম নির্মাণ করা হয়েছে। আধুনিক সুযোগ-সুবিধাসহ পূর্ণাঙ্গ ও ত্রুটিমুক্ত আধুনিক রেলস্টেশন অবিলম্বে বাস্তবায়ন করতে হবে, সরাসরি খুলনা-ঢাকা বিরতিহীন ট্রেন সার্ভিস চালু, খুলনা-দর্শনা ডাবল রেললাইন স্থাপন এবং রূপসা ও ভৈবর নদীর তীর ঘেঁষে শহর রক্ষা বাঁধসহ দৃষ্টিনন্দন রিভারভিউ রোড নির্মাণ করতে হবে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান সংগঠনের মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ জামান। উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি শেখ মোশাররফ হোসেন, সহ-সভাপতি শাহিন জামাল পন, অধ্যাপক আবুল বাসার, মিনা আজিজুর রহমান, সাবেক সভাপতি এস এম দাউদ আলী, ইঞ্জিনিয়ার আজাদুল হক, যুগ্ম মহাসচিব শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, মিজানুর রহমান বাবু, মিজানুর রহমান জিয়া, আফজাল হোসেন রাজু, রকিব উদ্দিন ফারাজী, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান টিংকু, সৈয়দ এনামুল হাসান ডায়মন্ড, মহিলা সম্পাদক রসু আকতার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: আবু জাফর, মো: নুরুজ্জামান খান বাচ্চু, আইনজীবী সমিতির সাবেক নেতা এ্যাড. মো: মনিরুল ইসলাম পান্না, এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, শেখ হাফিজুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।

স্যোসিয়াল মিডিয়াতে শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর...